June 30, 2022, 4:54 pm

স্বাগতম:
আমার ব্লগে আপনাকে স্বাগতম। সামাজিক আচরণ করুন, সকল-কে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখুন।

অ্যাপোলো হসপিটাল, ২১ গ্রীম্স ল্যান্ড, অফ গ্রীম্স রোড, চেন্নাই রোড, চেন্নাই-৬০০,০০৬, চিকিৎসা সেবা নেয়ার নিয়ম-

আপনারা যারা অ্যাপোলো হসপিটাল এর নাম শুনেছেন কিন্তু যাবে যাবে করে যাওয়া হয়নি তাঁদের জন্য লিখছি। সব বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে লিখা। ধৈর্য ধরে পুরোটা পড়ার চেষ্টা করুন। যেহেতু কলকাতা যাওয়ার বিষয়ে আগেই আলোচনা করেছি সেহেতু কলকাতার পর থেকে আলোচনা করি। আপনারা চেন্নাই যাওয়ার দুটো রাস্তা পাবেন। ট্রেন যাওয়ার জন্য আগে থেকে রিজার্ভেসন করে রাখলে দ্রুত কলকাতা থেকে চেন্নাই যেতে পারেন। ভাড়া ১৪০০থেকে ৩২০০রুপি পর্যন্ত হতে পারে। এটা তখনকার টিকেটফেয়ার এর উপর ডিপেন্ড করে। ট্রেনে ৩০/৩২ঘন্টা লাগতে পারে। আরেকটি মাধ্যম হলো ফ্লাইটে যাওয়া। ৪০০০থেকে ১১০০০রুপি পর্যন্ত টিকেট মূল্য হতে পারে। তবে সব ক্ষেত্রে টিকেট আগে করে রাখা ভাল।
চেন্নাই স্টেশন থেকে টেক্সি অথবা অটো(ডিজেল) নিয়ে ডাইরেক্ট অ্যাপোলো হসপিটাল, ২১ গ্রীম্স ল্যান্ড, অফ গ্রীম্স রোড যেতে পারেন। টেক্সি ৫০০রুপি, ৩০০রুপি অটো।
আর ফ্লাইট থেকে নেমে এয়ারপোর্টের সামনে পাবেন টেক্সি ও অটো। ভাল হবে টেক্সিতে যাওয়া। ভাড়া ৫০০ থেকে ৭০০এর উপরে নয়।
যদি সকাল ৮টার মধ্যে অ্যাপোলো হসপিটাল পৌছান তাহলে আপনার কপাল খুব ভাল। অ্যাপোলো হসপিটাল মেইন ব্লক বিল্ডিংটির সামনের বিল্ডিং এর নাম সুন্দর ব্লক(আপনাদের সুবিধার্থে দুটো ব্লকের ছবি দেয়া হলো)। সেখানে ঢুকেই হাতের ডানে গ্লাসের ঘরের ভেতরে ৩জন ব্যক্তির মধ্যে যে কোন একজন ব্যক্তিকে আপনার বিস্তারিত বলুন এবং পাসপোর্ট দিন। তারা ফর্ম দেবে সেটা পুরণ করে পাসপোর্ট স্ক্যান করে আপনার মুল সমস্যা কি সেটা জিজ্ঞাসা করবে। ডাক্তার চয়েস থাকলে তাকে এপোয়েন্টমেন্ট করার ব্যবস্থা করে দেন নতুবা তারা আপনার সমস্যা অনুযায়ী ডাক্তার নির্বাচন করে দেবেন। সেই ঘরে কাজ শেষ হয়ে গেলে ঘর থেকে বের হয়ে আসার সময় রেজিষ্ট্রেশন ফর্মটি নিয়ে সামনের ক্যাশ কাউন্টারে জমাদিন। ২৫০টাকা রেজিষ্ট্রেশন ফি(২০১৬) জমা দেয়ার পর আপনাকে ২টি ফাইল(সাদা ও হালকা হলুদ) সহ ডাক্তার কতনম্বর রুমে আছে তা জানিয়ে দেবেন। এবার আপনি সুন্দরী ব্লক থেকে বের হয়ে মেইন ব্লক গিয়ে হেল্পডেক্সে রুম নাম্বার জিজ্ঞাসা করুন। রুম নাম্বার পাওয়ার পর দেখবেন ঐ ডাক্তারের সেক্রেটারীগণ কয়েকজন বসে আছে। আপনি ডাক্তারে নাম জিজ্ঞাসা করে আপনার ফাইলটি জমাদিন।তারা কম্পিউটারে এন্ট্রি দিয়ে আপনার সময় ও সিরিয়াল নাম্বার বলে দেবেন। অ্যাপোলো হসপিটালে সিরিয়াল ও সময়ের বিষয়টা অত্যান্ত যত্নসহকারে দেখা হয়। কোন রুগী উপস্থিত না থাকলে ডাক্তার ঐসময় কোন রুগী দেখেন না। মনে রাখবেন আপনি সাউথ এশিয়ার সর্বোচ্চ চিকিৎসা প্রদানকারী হাসপাতালে এসেছেন। শুধু চেন্নাই শহরে ৯৫০০জন ডাক্তার, ২৩০০০নার্স ও স্টাফ এবং ২৭টা চিকিৎসা সেবা কেন্দ্র এখানে রয়েছে। যেমন- অ্যাপোলো মেইনব্লক, অ্যাপোলো স্পেশালাইজ, অ্যাপোলো এন্টারপ্রাইজ, অ্যাপোলো ওপেনহার্ট, অ্যাপোলো চাইল্ড, অ্যাপোলো আইকেয়ার, অ্যাপোলো লিভার রিসার্চ ইত্যাদি।
এবার সিরিয়াল মতাবেক ডাক্তারের কাছে যান। আপনার সমস্যার কথা উল্লেখ করুন এবং শেষে আপনার প্রেসক্রিপশন নিয়ে ডাক্তারের দেয়া টেস্টগুলো সর্ম্পকে ডাক্তারের সেক্রেটারীর সাথে ভালভাবে কথা বলে নিন। কতনম্বররুমে কোন কোন সেম্পল দিতে হবে এবং কত নম্বর রুমে টাকা জমা দিতে হবে বিস্তারিত।
টাকা মেইনব্লকের নিচতলায় পশ্চিমে জমা দেয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। ডলার থাকলে সেটা আগেই রুপি করে নেবেন। টাকা জমা শেষে রক্ত/স্টুল/অন্যান্য সকল সেম্পল দেয়ার পর সোজা হাসপাতালের বাইরে চলে আসুন। একট অটো নিয়ে ৫০০০স্ট্রিট, মডেল স্কুল রোড চলে আসুন। মুলত: বাঙ্গালিরা এটার নাম দিয়েছে বাঙ্গালী বস্তি। এখানে সবাই বাঙ্গালী। বাংলাদেশী, ওয়েস্ট বেঙ্গল, আসাম উড়িসার মানুষ। মিলেমিশে থাকতে পারবেন। রুম ভাড়া এখানে ৫০০টাকা প্রতিরাত্রী। রান্না করার ব্যবস্থা রয়েছে রুমগুলোতে। সাথে সংযুক্ত বাথরুম ও টিভি রয়েছে। কোয়ালিটি রুম নিতে গেলে অ্যাপোলোর সামনে কিছু রেস্টহাউজ আছে সেগুলো দেখতে পারেন। ভাড়া ৮০০থেকে ৬০০০টাকা পর্যন্ত। ডিলাক্স, এসি সব সুবিধা পাবেন।
এবার ফ্রেস হয়ে খাওয়া সেরে বিকাল ৪ঘটিকার দিতে ডাক্তারের সেক্রেটারীর সাথে দেখা করুন এবং আপনার রিপোর্ট সর্ম্পকে জেনেনি। এ হাসপাতালে সুবিধা হলো, রিপোর্ট এর জন্য এদিক সেদিক ছুটাছুটির কোন প্রয়োজন নেই। সরাসরি ডাক্তারের সেক্রেটারির সাথে যোগাযোগ রাখলেই ভাল হয়। তিনিই অল-ইন-অল। রিপোর্ট হাতে পেলে আপনার হাতের ফাইলদুটি নিয়ে সাদাটাতে কিছু রিপোর্ট এবং হলুদটাতে ঐ রিপোর্টের ফটোকপিগুলো ট্যাক করে সেক্রেটারী আপনাকে দিয়ে ডাক্তারের সাথে দেখা করার পারমিশন দেবেন। ডাক্তারে কাছে গিয়ে হলুদ ফাইলটি ডাক্তারকে দিন এবং সাদাটি আপনার কাছে রাখুন। ডাক্তার মুলত: হলুদ বা সাদা কোনফাইলের রিপোর্ট দেখেন না। সেটার হার্ট কপি হাসপাতালের রেকর্ডরুমে রাখা হয়। আর ডাক্তার রিপোর্ট কম্পিউটারে অনলাইনে দেখেন। আপনার সাথে ২/৪টা কথা সেরে প্রেসক্রিপশন দিয়ে বলবে ঔষধ নিয়ে আজকেই দেশে রওয়ানা দেন। তারমানে যেদিন অ্যাপোলো হসপিটাল পৌছাবেন সেদিনই ডাক্তার দেখানো কমপ্লিট। যদি সকাল ৮টার মধ্যে হাসপাতালে পৌছাতে না পারেন তবে অ্যাপোলো হসপিটাল যাওয়ার কোন দরকার নেই। পরের দিনের জন্য প্রস্তুতি নিন।
শুধুমাত্র টেস্টের রিপোর্ট পাওয়ার জন্য দেরি হয় যে যে ক্ষেত্রে তা হলো-এম.আর.আই(সিটিস্ক্যান), ইইইজি এবং সম্পূর্ণ বোডি চেকআপ(অর্থ বাদে)।
খাওয়াদাওয়ার ক্ষেত্রে চেন্নাইতে হাজার হাজার বাঙ্গালী হোটেল পাবেন কিন্তু শালারা অধিকাংশ বাঙ্গালি না। বাংলা বলতে পারলেও তারা মুলত উড়িষা, তামিল, দিল্লি অথবা আসামীয়া। খাওয়ার মান ও রুচি দুটোই গ্রহণ যোগ্য নয়। ডিম ভাত ৮০টাকা। এক্ষেত্রে রান্না করে খাওয়া অনেক ভাল।
সুস্থ থাকুন আমার পেজের সাথে যুক্ত থাকুন। এরপরে আসছে সি.এম.সি হসপিটাল, ভ্যালোর, তামিলনাড়ু, ইন্ডিয়ায় চিকিৎসা সেবা নেয়ার পদ্ধতি।
পোষ্টটি শেয়ার করে আপনার বন্ধুবান্ধবদের জানিয়ে দিন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved 2020 msbabu.com